মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১st ফেব্রুয়ারি ২০১৭

টেস্ট আইটেম কার্যক্রম

 

যোগ্যতা ভিত্তিক টেস্ট আইটেম ডেভেলপমেন্ট

 

নেপ কর্তৃক যোগ্যতাভিত্তিক অভীক্ষাপদ প্রণয়ন ও পুনঃনিরীক্ষণ সংক্রান্ত বিভিন্ন কার্যক্রম

  1. ২০০৯ সন থেকে সারা দেশে অভিন্ন প্রশ্নপত্রের মাধ্যমে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা চালু করা হলেও ২০১২ সন থেকে যোগ্যতাভিত্তিক অভীক্ষাপদ প্রশ্নপত্রে সংযোজন করা হয়।
  2. প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনক্রমে ২০১২ সনে ১০%, ২০১৩ সনে ২৫%, ২০১৪ সনে ৩৫% , ২০১৫ সনে ৫০% এবং ২০১৬ সনে ৬৫% যোগ্যতাভিত্তিক অভীক্ষাপদ প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে সংযোজন করা হয়।
  3. প্রতি বৎসর মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনকৃত আনুপাতিক হার অনুযায়ী প্রশ্নপত্রের কাঠামো চূড়ান্ত করার জন্য নেপ বছরের শুরুতেই ডিপিই-এর সাথে পরামর্শক্রমে জাতীয়কর্মশালার আয়োজন করেন এবং প্রশ্নকাঠামো চূড়ান্তকরে তা নেপের website এ প্রকাশ করা হয়।
  4. অনুরূপভাবে ২০১৭ সনের সমাপনী পরীক্ষার জন্য চূড়ান্তকৃত (৮০%) প্রশ্নকাঠামোগত ফেব্রুয়ারি মাসের শুরুতেই নেপের website এ প্রকাশ করা হবে।
  5. শুরু থেকেই প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রশ্নপত্র প্রণয়ণের দায়িত্ব নেপ পালন করে আসছে। প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় যোগ্যতাভিত্তিক প্রশ্নপত্র অন্তর্ভূক্ত করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার পর বিশ্ব ব্যাংক উক্ত কাজে নেপের অনুষদ সদস্যদের কারিগরি সহায়তা প্রদান করার জন্য একজন পরামর্শক নিয়োগ করে।
  6. ২০১২ সন থেকে প্রতিবিষয়ে নেপের ২ জন করে ৯ বিষয়ে মোট ১৮ জন নির্বাচিত অনুষদ সদস্য যোগ্যতাভিত্তিক অভীক্ষাপদ প্রণয়ন করে তা মাঠ পর্যায়েপাইলটিং ও Software এর মাধ্যমে বিশ্লেষণ করে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ব্যবহারের জন্য অত্যন্ত গোপনীয়তার সাথে সংরক্ষণ করে আসছেন।
  7. মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ২০১৫ সন থেকে মাঠ পর্যায়ের শিক্ষক-কর্মকর্তাদের মধ্যে থেকে যোগ্যতাভিত্তিক অভীক্ষাপদ প্রণয়নকারী নিয়োগের লক্ষ্যে online দরখাস্ত গ্রহণ করে ৩৩৪ জনের মধ্য থেকে  প্রমিক্ষণ কর্মশালা ও প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার মাধ্যমে ১৪০ জন অভীক্ষাপদ প্রণয়নকারী নির্বাচন করা হয়।
  8. নেপের অনুষদ সদস্যদের মধ্য থেকে নির্বাচিত ১৮ জন (প্রতিবিষয়ে ২ জনকরে) অভীক্ষাপদ পুনঃনিরীক্ষণকারীগণের দক্ষতাবৃদ্ধির জন্য ৬ দিনের প্রশিক্ষণ আন্তর্জাতিক পরামর্শকের নেতৃত্বে সম্পন্ন করা হয়।
  9. নির্বাচিত অভীক্ষাপদ প্রণয়নকারীগণ ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরে একবার ৭ দিনব্যাপী কর্মশালার মাধ্যমে ৯টি বিষয়ে যোগ্যতাভিত্তিক অভীক্ষাপদ প্রণয়ন করেন যা পরিমার্জন এবং মাঠপর্যায়ে পাইলটিং করে যথারীতি বিশ্লেষন পূর্বক প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা, ২০১৫ এর প্রশ্নপত্রে ব্যবহার করা হয়।
  10.  ২০১৬ সনের সমাপনী পরীক্ষায় ৬৫% যোগ্যতাভিত্তিক অভীক্ষাপদ সংযোজন করার লক্ষ্যকে সামনে রেখে ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে দুইবার ৭দিন ব্যাপী কর্মশালার মাধ্যমে নির্বাচিত অভীক্ষাপদ প্রণয়নকারীগণকর্তৃক অভীক্ষাপদ প্রণয়ন করা হয়।
  11. উক্ত প্রণয়নকৃত অভীক্ষাপদ সারা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের নির্বাচিত প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডিসেম্বর, ২০১৫ মাসে একবার পাইলটিং করে মূল্যায়ন ও  বিশ্লেষন পূর্বক নির্বাচিত অভীক্ষা পদ সংরক্ষণ করা হয়েছে পরবর্তী বছরগুলুতে  প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ব্যবহার করা হবে
  12. নেপের দায়িত্বপ্রাপ্ত অনুষদ সদস্যগণ প্রতি বছর প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শেষে মাঠ পর্যায়ের নির্বাচিত উপজেলা থেকে উত্তরপত্র সংগ্রহ করে তা থেকে মূল্যায়ন ও তথ্য সংগ্রহ কওে বিশ্লেষণপূর্বক রিপোর্ট প্রণয়ন করে থাকেন।
  13. মাঠপর্যায়ের পরীক্ষা গ্রহণ ও মূল্যায়নকার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য নেপ ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে মাঠপর্যায়ের নবনিযুক্ত ২৪০ জন সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসারগণের যোগ্যতাভিত্তিক মূল্যায়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করেছেন ও  পিটিআই ইনস্ট্রাক্টরগণের (৩০০ জন) প্রশিক্ষণ চলমান আছে।
  14. এ ছাড়াও নেপ মার্কার ট্রেনিং ম্যানুয়েল প্রণয়ন, পরিমার্জন করে মাস্টার ট্রেইনারদের প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করাসহ এবং মাঠ পর্যায়ের মার্কারদের প্রশিক্ষণ সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য ম্যানুয়েল সরবরাহ ও প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করেন।

Share with :
Facebook Facebook